• ঢাকা
  • রবিবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

Advertise your products here

ডোনাল্ড লু'র সফরকে কেন্দ্র করে দেশে বিদেশে সরকার বিরোধী গোষ্ঠী অতি তৎপর ।

তৈমুর মল্লিক
জয় বাংলা ২৪ ; প্রকাশিত: সোমবার, ০৯ জানুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ, ১২:৫৭ পিএম
ডোনাল্ড লু,  বাংলাদেশ সফর,  সরকার বিরোধী, আওয়ামীলীগ, বিএনপি, জামায়াত

চলতি মাসের মাঝামাঝিতে দ্বিপক্ষীয় সফরে ঢাকায় আসছেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি ডোনাল্ড লু। তবে কূটনৈতিক সূত্রে বলছে, আগামী ১৪ জানুয়ারি ঢাকায় আসতে পারেন ডোনাল্ড লু। তিনি মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরে বাংলাদেশবিষয়ক শীর্ষ কর্মকর্তা। 

 


এই ডোনাল্ড লু ঢাকাস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে পড়ার বিষয়ে জানতে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ ইমরানকে ডেকেছিলেন। 
শুধুমাত্র মিষ্টার লু নয়, সাম্প্রতিক সময়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অনেককেই বাংলাদেশে আসা যাওয়ার মধ্যে দেখা যাচ্ছে । বোঝাই যায় - মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আগামী জাতিয় নির্বাচনকে প্রভাবিত করার জন্য আদাজল খেয়েই মাঠে নেমেছে । আর এই বিষয়কে বিএনপি এবং তাদের মিত্ররা আশির্বাদ সরূপ নিয়েছে । 


এখানেই বোঝার মতো বিষয় - আভ্যান্তরিন রাজনীতি একে অপরকে মোকাবেলা করবে রাজনীতির ভাষায় । কিন্তু বিএনপি ও তাদের মিত্রদের সেই যোগ্যতা , সেই দক্ষতা শূন্যের ঘরে সেটা নিজেরাই প্রমান করে দিয়েছে । স্বভাবতই তারা এমন একটি দেশের নিকট নিজেদের সবকিছু বিক্রি করে দিয়েছে যে, যারা ১৯৭১ এর অনেক আগে থেকেই বঙ্গবন্ধুকে মেনে নিতে পারেনি, তার রাজনৈতিক চাহিদা মেনে নিতে পারেনি। আর তাই স্বভাব সুলভ চরিত্রে পাকিস্তানের পাশে দাড়িয়েছিলো নির্লজ্জের মতো। সর্ব শক্তি নিয়োগ করেছিলো বাংলাদেশ জন্মের পথে কাটা বিছাতে । কিন্তু রাশিয়ার তাৎক্ষনিক বাংলাদেশের পক্ষ অবলম্বন এবং সমুদ্র তলদেশে মার্কিনিদের জন্য তৈরি করেছিলো মৃত্যু ফাঁদ । যার ফলে মার্কিনিদের সেই শক্তি কোন কাজেই আসেনি । পরবর্তিতে তারা থেমে থেকেছে সেটা নয়, জিও পলেটিক্সে বাংলাদেশকে পাশে পেতে অতি তৎপরতায় নিমজ্জিত থেকেছে সব সময় । বলাচলে বঙ্গবন্ধুকে চিরতরে শেষ করেদিতে তাদের হাত ছিলো প্রশস্থ । 

 


২০২৩ এ এসেও মার্কিনিদের সেই জিও পলেটিক্স বাংলাদেশ কেন্দ্রিক সাফল্য খুঁজে পায়নি । আর তাই তারা মরিয়া হয়ে উঠেছে নিজেদের স্বার্থে ২০২৪ সালে জাতিয় নির্বাচনকে কেন্দ্র করে । তারা শেখ হাসিনাকে প্রধান অন্তরায় হিসাবে বিবেচিত করছে । 
সুযোগটা কাজে লাগিয়েছে বিএনপি ও তাদের মিত্ররা । মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাথে হাত মিলিয়ে দেশের মধ্যে থেকে ও বাইরে থেকে সকল প্রকার সহযোগিতা করে চলেছে মার্কিনিদের সেটা দৃশ্যমান । 
চলতি মাসে সেই ধারাবাহিকতায় ডোনাল্ড লু  সফরে আসছেন । মিষ্টার লু এর সফরে আসা এটা তাৎক্ষনিক কোন বিষয় নয় । এটা পূর্ব নির্ধারিত একটি রোড ম্যাপ । তার বাংলাদেশ সফর সূচিতে বর্তমান সময়কে বেছে নেয়া পূর্ব নির্ধারিত । শুধুমাত্র একটি নাটক আমরা মাঝপথে দেখতে পেলাম । 

 


বাংলাদেশে মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের বিএনপির এক নেতার বাসায় যাওয়া এটি ছিলো একটি নাট্য স্ক্রিপ্ট । সে সেখানে যাবে মায়ের কান্না নামক একটি সংগঠন সেখানে ৭৫ পরবর্তি হিসাব নিকাশ নিয়ে আসবে , এসবই ছিলো নাটকের ছোট ছোট অধ্যায় । 


পিটার হাস বিষয়টিকে নিরাপত্তা জনিত ক্লু হিসাবে দাড় করাবেন, এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নড়ে চড়ে বসে বাংলাদেশের উপর আরো চড়াও হবে , আন্তর্জাতিক ফোরামে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজেদের পক্ষে সাফাই গাওয়ার মতো যুক্তি পেয়ে যাবে এসবই হলো শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে সরানোর রোড ম্যাপ । 

 


বিএনপি ও তার মিত্ররা এই সময়কে কাজে লাগিয়ে দেশে ও বিদেশে বসে মিষ্টার ডোনাল্ড লু এর সফরকে অতি গুরুত্ব সহকারে প্রকাশ করছে । এই ক্ষেত্রে তারা প্রচার করছে - সরকারের যে কোন সময়ে পতন হবে , মিষ্টার লু একজন ক্ষমতা পরিবর্তনের মাষ্টার মাইন্ড, তার সফর প্রমান করে শেখ হাসিনা আর থাকতে পারবে না । 

 


নুরুল হক নুরু'র দলের মাধ্যমে প্রচার চলছে - আবার স্যাংশন আসছে । মিষ্টার লু সফরে আসছেন, বাংলাদেশ ভয় পেয়ে সকল কুটনৈতিকদের জরুরি বার্তা দিয়েছে । নিশ্চই স্যাংশন আসছে , তা না হলে ভয় কেন পাবে ? 
রুমিন ফারহানা ও তার ফ্যান ফলোয়ার দিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিভিন্ন কর্মকান্ডের ফাঁক বের করে মিথ্যা তথ্য, গুজব দিয়ে মানুষকে ব্যাতিব্যাস্ত রাখা হচ্ছে । 
বিদেশি কয়েকটি পেজের মাধ্যমে নুরুর বর্তমান মেন্দি সাফাদি বিষয়কে সামনে এনে মানুষকে ভুল বার্তা প্রেরণ করা হচ্ছে । 

 


সাম্প্রতিক সময়ে সবচেয়ে বেশি তারা নেতিবাচক কথা বলছে মিষ্টার ডোনাল্ড লু এর সফর কি কি বিষয়কে প্রভাবিত করতে পারে এবং শেখ হাসিনাকে ক্ষমতা থেকে সরে যেতে হবে । 
সার্বিক বিষয়কে পর্যালোচনা করলে এটুকু বলা যায়, শেখ হাসিনা কোন পদক্ষেপ নেবে সেটা সে ভালই জানে । কিন্তু এই সব নেতিবাচক কথার জবাব দেবার জন্য আওয়ামীলীগের সত্যি কোন মেধা নেই , লোকবল নেই, ইচ্ছা শক্তি নেই, তদারকি নেই , সেই চেষ্টাও নেই । কেন যেন প্রচার মাধ্যম থেকে শুরু করে, সকল দিক চুপ করে রয়েছে । 

 


বোঝাই যায়, তাদের নিজেদের কোন নির্দিষ্ট দল নেই । তারা এখন এদিক হলেও সময় যদি ইশারা করে তাহলে সেদিকে মুখ ফিরিয়ে নেবে । যা মোটেও কাম্য ছিলো না । 
ডোনাল্ড লু আসুক, আর যেই আসুক , এই মুহুর্তে জনগনের একতাই বাংলাদেশকে এই স্পর্শকাতর সময় থেকে বের করে নিয়ে আসতে পারে । এর বিকল্প নেই । 

 

 

 

#জয়_বাংলা

#জয়_বঙ্গবন্ধু

 

Md Taimur Mollik

 

 

#ডোনাল্ড_লু #আওয়ামীলীগ #বিএনপি #জামায়াত #সরকার_বিরোধী #রাষ্ট্রবিরোধী

 

 

 

জয় বাংলা ২৪ / নিউজ ডেস্ক

সম্পাদকীয় বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ