• ঢাকা
  • রবিবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

Advertise your products here

দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের অর্থনীতি অনেক বেশি স্থিতিশীল

অনলাইন নিউজ ডেস্ক
জয় বাংলা ২৪ ; প্রকাশিত: সোমবার, ১৮ জুলাই, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১২:৫৬ পিএম
দক্ষিণ এশিয়া,  বাংলাদেশ,  অর্থনীতি,   স্থিতিশীল , Economic Crisis, Nikkei, South Asia, Bangladesh,

 

বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় অর্থনৈতিক বিষয়ক পত্রিকা  নিক্কেই (Nikkei) দক্ষিণ এশিয়ার বর্তমান অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে বাংলাদেশকে ব্যতিক্রম হিসেবে দেখছে। “Beyond Sri Lanka, economic cyclone bears down on South Asia”, শিরোনামে তাদের সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, ভারত, নেপাল, মালদ্বীপ এবং বাংলাদেশের অর্থনৈতিক চিত্র বিস্তারিত ভাবে তুলে ধরেছে।

 

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বেড়ে ওঠা আর্থিক সংকটের ফলে মুদ্রাস্ফীতি, উচ্চ সুদের হার এবং মুদ্রার অবমূল্যায়ন ঘটবে , যেখানে বাংলাদেশ হবে  ব্যতিক্রম ।

নিক্কেই প্রকাশ করেছে যে, বাংলাদেশ সময় উপযোগি সিদ্ধান্তের কারণে সফলভাবে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ এবং বৈদেশিক ঋণকে আরও টেকসই পর্যায়ে রেখেছে। 

প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়েছে যে,  বাংলাদেশ স্থির ট্যাক্স রাজস্ব বজায় রাখতে পেরেছে কারণ দেশটি COVID19 মহামারীর প্রথম দুটি ধাক্কার  সময় একটি কঠোর লকডাউনও প্রয়োগ করেনি। 

 

বিষয়টি নিজেদের খোলা বাজারে ব্যাপক ভাবে হস্তক্ষেপ করা থেকে বিরত রেখেছে । এবং স্বার্থক ভাবে প্রমাণ করেছে যে, রাজস্ব ঘাটতি এবং চলতি অ্যাকাউন্ট ব্যালেন্স এমন ভাবে স্থিতিশীল পর্যায়ে রেখেছে যেভাবে বৃষ্টির দিনের জন্য তহবিল সঞ্চয় করে রাখা হয় । 

প্রতিবেদনে প্রকাশ করা হয়েছে যে,  বৈদেশিক মুদ্রার কোষাগার সংকুচিত হওয়া এবং বৈশ্বিক মুদ্রাস্ফীতি বৃদ্ধির কারণে দক্ষিণ এশিয়ার বেশিরভাগ অংশ একই রকম ঝুঁকির সম্মুখীন হচ্ছে। 

 

  • মালদ্বীপ বাহ্যিক এবং সামষ্টিক অর্থনৈতিক ধাক্কার জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ এবং জিডিপি অনুপাতের সাথে এর ঋণ 100% ছাড়িয়ে গেছে। 
  • শ্রীলঙ্কা স্বাধীনতার পর থেকে সবচেয়ে খারাপ অর্থনৈতিক সঙ্কটের মুখোমুখি হচ্ছে কারণ তার নমনীয় আর্থিক শৃঙ্খলা, দূরদর্শিতার অভাব এবং অপরিকল্পিত উন্নয়ন মেগা প্রকল্পের কারণে। 
  • পাকিস্তানও শ্রীলঙ্কার পথে রয়েছে কারণ জানুয়ারিতে তার ঋণের জিডিপি অনুপাত ছিল ৩৫% এবং ভারত মহাসাগরের দ্বীপ দেশটির মতো একটি অস্থিতিশীল রাজনৈতিক পরিস্থিতি। 
  • বিশ্বের ষষ্ঠ বৃহত্তম অর্থনীতি ভারতও মুদ্রাস্ফীতি থেকে মুক্ত নয়। 2022 সালের এপ্রিলে খুচরা মূল্য প্রায় 7.8% বেড়েছে।

 

সূত্রঃ 

https://asia.nikkei.com/

https://albd.org/articles/news/39366/

 

 

 

জয় বাংলা ২৪ / অনলাইন ডেস্ক

অর্থনীতি বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ