• ঢাকা
  • রবিবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ০৫ ফেরুয়ারী, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

Advertise your products here

ফ্রিডম পার্টির ক্যাডার শামসুল ইসলাম'কে ৩১ বছর পর গ্রেফতার করেছে র‍্যাব - ২

অন লাইন নিউজ ডেস্ক
জয় বাংলা ২৪ ; প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৯:৩৩ পিএম
ফ্রিডম পার্টি,  ক্যাডার শামসুল ইসলাম, ৩১ বছর পর গ্রেফতার,   র‍্যাব - ২, আইনশৃঙ্খলা

 

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
বাংলাদেশ পুলিশ
র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-২
বছিলা, মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭


স্মারক নং- র‍্যাব-২/২০২২/মিডিয়া/প্রেস নোট/                তারিখ- ১৮ অক্টোবর ২০২২ খ্রিঃ। 

 

 

প্রতি,
বার্তা সম্পাদক, জাতীয় দৈনিক পত্রিকা ও টিভি চ্যানেল সমূহ।

 

 

প্রেস বিজ্ঞপ্তি 

১৯৯০ সালে ময়মনসিংহে খুন ও অস্ত্র মামলার  পলাতক আসামি ফ্রিডম পার্টির ক্যাডার শামসুল ইসলাম'কে দীর্ঘ ৩১ বছর পর গ্রেফতার করেছে র‍্যাব - ২

 

১।    “বাংলাদেশ আমার অহংকার” এই স্লোগান নিয়ে র‍্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে বিভিন্ন ধরণের অপরাধীদের গ্রেফতারের ক্ষেত্রে জোরালো ভূমিকা পালন করে আসছে। র‌্যাবের সৃষ্টিকাল থেকে বিপুল পরিমান অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ উদ্ধার, চাঁদাবাজ, সন্ত্রাস, খুনী, ছিনতাইকারী, অপহরণ প্রতারকদের গ্রেফতার করে সাধারণ জনগণের মনে আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও বিভিন্ন সময়ে চাঞ্চল্যকর অপরাধের জড়িত দীর্ঘদিনের পলাতক দন্ডপ্রাপ্ত অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে র‍্যাব জনগণের সুনাম অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে। 

 

২।     বিগত ১৯৯০ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি তারিখে ১৯৩০ ঘটিকায় ময়মনসিংহ জেলার কোতয়ালী থানাধীন ঢাকা-ময়মনসিংহ রোডস্থ পূরবী সিনেমা হলের নিকট ফ্রিডম পার্টির অফিসের সামনে মোঃ হারুন অর রশিদ (২৫)’ কে ফ্রিডম পার্টির লোকজন গুলি করে এবং ঘটনাস্থলে মোঃ হারুন অর রশিদসহ আরো ০৪ জন গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুত্বর আহত হন। পরবর্তীতে মোঃ হারুন অর রশিদ (২৫) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু বরণ করেন। উক্ত ঘটনার পরে আসামীরা পালানোর সময় ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল থানাধীন এলাকায় শামসুল ইসলাম সহ মোট ৩০ জনকে অস্ত্রসহ আটক করে ত্রিশাল থানার পুলিশ। উক্ত ঘটনায় ১। ময়মনসিংহ কোতয়ালী থানার মামলা নং-১৭(২)১৯৯০, ধারা-৩০২/৩২৬/৩২৪/৩৪ পেনাল কোড (হত্যা মামলা) এবং ২। ময়মনসিংহ ত্রিশাল থানার মামলা নং-২(২)১৯৯০, (অস্ত্র আইন) মামলা হয়। পরবর্তীতে তদন্ত শেষে ময়মনসিংহ জেলার সহকারী পুলিশ সুপার সদর সার্কেল, ময়মনসিংহ, মোট ৩০ জন আসামিকে অভিযুক্ত করে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। বিচারিক কার্যক্রম শেষে গত ০৯ মে ২০১৭ তারিখে ময়মনসিংহ দ্রæত বিচার ট্রাইব্যুনাল উক্ত মামলায় ৩০ জন আসামির মধ্যে ২৭ জনকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান করেন। ০৩ জন মৃত্যুবরণ করায় বিজ্ঞ আদালত বিচারের জন্য সোপর্দ করেনি। গ্রেফতারকৃত শামসুল ইসলাম নিম্ন আদালতে যাবজ্জীবন কারাদন্ডে দন্ডিত হলেও সে পলাতক থাকে। 

 

৩।    এরই ধারাবাহিকতায়, গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‍্যাব-২ এর একটি আভিযানিক দল গত ১৭ অক্টোবর ২০২২ তারিখ ২২২০ ঘটিকায় রাজধানীর শাহজাহানপুর থানা এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে উক্ত হত্যাকান্ডের যাবজ্জীবন সাজা প্রাপ্ত পলাতক আসামী শামসুল ইসলাম, পিতা-মৃত মনিরুল ইসলাম, থানা-রূপগঞ্জ, জেলা-নারায়নগঞ্জ’কে দীর্ঘ প্রায় ৩১ বছর পর গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামীকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে প্রাপ্ত গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে যা যাচাই বাছাই করা হচ্ছে। ধৃত আসামির দেয়া তথ্য মতে এই দীর্ঘ সময় সে দেশে ও বিদশে আত্মগোপন করে ছিলো।


৪।    গ্রেফতারকৃত আসামীর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

 


মোঃ ফজলুল হক
সিনিঃ এএসপি
সিনিঃ সহকারী পরিচালক (মিডিয়া)
পক্ষে অধিনায়ক
মোবাঃ ০১৭৭৭৭১০২০৩

 

 

 

জয় বাংলা ২৪ / নিউজ ডেস্ক

অপরাধ বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ