• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৫ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ; ৩০ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

Advertise your products here

Advertise your products here

ঢাকা  বৃহস্পতিবার, ১৫ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ;   ৩০ মার্চ, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

সরকার প্রধানের প্রশ্ন - অপরাধটা কি আওয়ামী লীগের? পারলে উত্তর দিন

এস এম মোতাহের হোসাইন
Daily J.B 24 ; প্রকাশিত: শুক্রবার, ২৭ মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ০৪:৫৮ পিএম
এস এম মোতাহের হোসাইন, সোশ্যাল মিডিয়া, আওয়ামীলীগ, বিএনপি, শেখ হাসিনা , ষঢ়যন্ত্র

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি-জামায়াত জোটের মদদপুষ্ট কয়েকটি রাজনৈতিক দল দেশের মানুষকে আবারও অন্ধকার ও দুর্দশার যুগে নিয়ে যাওয়ার জন্যই আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাতের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। তিনি আরো বলেন, ‘কি কারণে তারা সরকারকে উচ্ছেদ করতে চায়। আসলে তারা জনগণকে এই সরকার যে সব সুযোগ-সুবিধা দিচ্ছে- তা থেকে বঞ্চিত করতে চায়। এটাই কি তাদের আসল উদ্দেশ্য?


প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের কিছু রাজনৈতিক নেতা দেশের কোনো সংকটপূর্ণ মুহূর্তে কখনোই জনগণের পাশে থাকেন না। জনগণের পাশে দাঁড়ানোর পরিবর্তে তারা অনেক বেশি ব্যস্ত থাকেন সরকার পতনের আন্দোলন গড়ে তুলতে। মাহমুদুর রহমান মান্না, ড. কামাল হোসেন, কমিউনিস্ট পার্টি ও বাম দলগুলো আওয়ামী লীগ সরকারকে উচ্ছেদ করার আন্দোলন গড়ে তুলতে এখন বিএনপি- জামায়াত জোটের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছে।’


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, বিশ্বের কাছে বাংলাদেশ যখন উন্নয়নের রোল মডেল, তখন আমাদের কিছু কিছু মানুষ বিদেশের কাছে নানাভাবে অপপ্রচার চালিয়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করতে ব্যস্ত, সরকার উৎখাতে ব্যস্ত। খুব ভালো কথা! তাদের কর্মসূচি জনগণের কাছে তুলে ধরুক, তারা দেশের মানুষের জন্য কী করবে। একটি কথা আমি বলতে চাই, আমি প্রায় সময় বক্তৃতায় শুনি আমাদের দেশের কিছু নেতা আছে, এই সরকারকে হটাতে হবে, কোন সরকার? আওয়ামী লীগ সরকার। এখানে বিএনপি-জামায়াত জোট আছে এবং তাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন আমাদের মান্না সাহেব এবং ড. কামাল হোসেনসহ তাদের একটি গ্রুপ। আবার তাদের সঙ্গে যুক্ত কমিউনিস্ট পার্টি এবং আমাদের বাম দল, বাসদ আরো অন্যরা। তারা সবাই এক হয়ে আন্দোলন করে আওয়ামী লীগ সরকার হটাবে।


সরকার প্রধান বলেন, আমার প্রশ্ন অপরাধটা কি আওয়ামী লীগের? আমরা যে সরকারে এসেছি ২০০৮-এর নির্বাচনে, যে নির্বাচনী ইশতেহার দিয়েছিলাম, সেই নির্বাচনী ইশতেহারে আমরা রূপকল্প-২১ ঘোষণা দিয়েছিলাম। আমরা নির্বাচনী ইশতেহার হিসেবে আমাদের লক্ষ্য অর্জন করেছি।
তিনি বলেন, ২০২০ সালে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন, ২০২১ সালে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করেছি আমরা। সেই সময়ে আমরা কী অর্জন করেছি? বাংলাদেশ স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে উন্নীত হয়েছি। আমার প্রশ্ন এটা কি তাদের ভালো লাগেনি? সেই জন্য কি তারা বাংলাদেশকে, মানে এই সরকারকে হটাতে চায়?
প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা মাথাপিছু আয় বৃদ্ধি করেছি। মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে। খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছি। আজকে সারা বাংলাদেশে আমরা শতভাগ বিদ্যুৎ পৌঁছাতে পেরেছি। ভূমিহীনদের মাঝে যে কর্মসূচি জাতির পিতা শুরু করেছিলেন, আমরা আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাধ্যমে সেই ভূমিহীনদের ঘর দিচ্ছি, জমি দিচ্ছি এবং তা বিনামূল্যে। প্রথমবার সরকারের এসে আমাদের আর্থিক সীমাবদ্ধতা ছিল। আমরা ব্যারাক হাউজ নির্মাণ করে দিয়েছিলাম। দ্বিতীয়বার আসার পর থেকে আমরা এখন তাদের আলাদা সেমিপাকা ঘর তৈরি করে দিচ্ছি।


প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ দেশের কৃষক-শ্রমিক, সাধারণ মানুষ প্রত্যেকটা মানুষের ভাগ্য যাতে পরিবর্তন হয়, তার ব্যবস্থা আমরা করেছি। আজকে দারিদ্র্যের হার হ্রাস পেয়েছে। কৃষকরা সরকারের অনেক প্রণোদনা পাচ্ছেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত জোট সরকার দেশের সম্পদ লুটপাট করে খেয়েছে, মানুষ খুন করেছে। ২০০১ সালের নির্বাচনের পর থেকে যে অত্যাচার সারা দেশবাসীর ওপর করেছিল, এই বিএনপি-জামায়াত জোট- সেই পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী যেভাবে ১৯৭১ অত্যাচার করেছিল ঠিক একইভাবে।?

 

লেখকঃ এস এম মোতাহের হোসাইন

 

 

Daily J.B 24 / জয় বাংলা২৪ নিউজ ডেস্ক

খোলা-কলাম বিভাগের জনপ্রিয় সংবাদ